শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০, ১১:১১ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
গাড়িচালকদের জন্য সারাদেশে বিশ্রামাগার নির্মাণ করা হবেঃ প্রধানমন্ত্রী নওগাঁ-৬ আসনে আ.লীগ প্রার্থী আনোয়ারের জয়, হরতালের ডাক বিএনপির সমাজে ধর্ষণ বন্ধে ব্যাপক ব্যবস্থা নিতে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড করার প্রস্তাব মন্ত্রিসভায় উঠছে কাল পদ্মা সেতু এখন বঙ্গবন্ধু সেতুর সমান দৃশ্যমান বিশ্ব শান্তি ও নিরাপত্তা রক্ষায় কাজ করতে চায় বাংলাদেশঃ প্রধানমন্ত্রী ভিপি নুর’কে গ্রেপ্তারের দাবিতে শাহবাগে অবরোধ ধর্ষণ প্রতিরোধ ও প্রতিকারে সরকার তৎপরঃ মহিলা প্রতিমন্ত্রী সরকারি ২৬ দফা নির্দেশনা মেনে দুর্গোৎসব পালন করতে হবেঃ শাহাব উদ্দিন করোনায় আক্রান্ত তাহসান, ভক্তদের নিকট চেয়েছেন দোয়া

চেয়ারম্যানকে বিয়ের দাবিতে এক সন্তানের জননীর অনশন

চেয়ারম্যানকে বিয়ের দাবিতে এক সন্তানের জননীর অনশন

বিডি নিউজ ৭১ : জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার আওলাই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাককে (৫২) বিয়ের দাবিতে ইউনিয়ন পরিষদ চত্বর ও চেয়ারম্যানের বাড়িতে সোমবার সকাল থেকে রাত পর্যন্ত অনশন করেছেন ফারিয়া আখতার চুমকী (৩৮) নামে এক গৃহবধূ। খবর পেয়ে পালিয়ে গেছেন চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক।

ফারিয়া আখতার চুমকী গাইবান্ধার কামদিয়া এলাকার বাসিন্দা ব্যবসায়ী সনি চৌধুরীর স্ত্রী ও এক কন্যা সন্তানের জননী।

চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক পাঁচবিবি উপজেলার ছাতিনআলী গ্রামের মৃত ইউনুস মন্ডলের ছেলে ও আওলাই ইউনিয়ন বিএনপির সদস্য।

ফারিয়া আখতার চুমকী অভিযোগ করে বলেন, ৬-৭ মাস আগে মোবাইলে চেয়ারম্যানের সঙ্গে আমার পরিচয় হয়। পরিচয়ের পর থেকেই বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে সে বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে আমার সঙ্গে দৈহিক সম্পর্ক গড়ে তোলে। কিছুদিন আগে আমাদের সম্পর্কের বিষয়টি আমার স্বামীসহ আত্মীয়দের মধ্যে জানাজানি হলে তারা আমাকে বিভিন্ন রকম চাপ সৃষ্টি করতে থাকে। বিষয়টি চেয়ারম্যান রাজ্জাককে জানিয়ে বিয়ের কথা বললে সে বিভিন্ন রকম তালবাহানা করতে থাকে। এতে কোনো উপায় না পেয়ে আজকে বিয়ের দাবিতে চেয়ারম্যান রাজ্জাকের কাছে এসেছি। আমি এখানে আসার পর সে পালিয়ে গেছে।

আওলাই ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী আমিনুল ইসলাম জানান, ওই গৃহবধূকে তার পরিবার রাতে এসে নিয়ে গেছে। ঘটনাটি সত্য নয়, সাজানো নাটক।

আওলাই ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার সেকেন্দার আলী বলেন, পাশের জেলার এক গৃহবধূ চেয়ারম্যানকে বিয়ের দাবি নিয়ে এসেছিল। যেহেতু এটা প্রমাণসাপেক্ষ ব্যাপার তাই তাকে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে আওলাই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

পাঁচবিবি থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুনসুর রহমান জানান, ঘটনাটি শুনেছি। ওই গৃহবধূ অভিযোগ দিলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন...

আপনার মন্তব্য প্রদান করুন...


© All rights reserved © 2018 bdnews71
Design & Developed BY N Host BD