সোমবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ০৯:০১ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের পরিকল্পনা পর্যবেক্ষণ প্রধানমন্ত্রীর শেখ মুজিব থেকে ‘বঙ্গবন্ধু’ হওয়ার ৫১তম বার্ষিকী আজ ডোপ টেস্ট ছাড়া সরকারি চাকরি নয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের শহীদদের প্রতি শ্রমিক নেতা পলাশের শ্রদ্ধা জ্ঞাপন জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেই অধিনায়ক মাশরাফির শেষ সিরিজ’ মুজিববর্ষ উপলক্ষে চীনের প্রেসিডেন্টকে শেখ হাসিনার আমন্ত্রণ চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচন: আ.লীগের প্রধান সমন্বয়ক ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ স্বপ্নের মেট্রোরেলের প্রথম কোচ ঢাকায়, খোলা হলো মোড়ক বঙ্গভবনে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচন ২৯ মার্চ, বগুড়া ও যশোরে উপনির্বাচন একইদিন

ধর্ষণের খবর পড়ে নিজের ধর্ষণের খবর দিলেন বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী

ধর্ষণের খবর পড়ে নিজের ধর্ষণের খবর দিলেন বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী

বিডি নিউজ ৭১ : ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন খুলনা নগরীর বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী (২৮)। এ ঘটনায় ওই ছাত্রী মামলা করেছেন। মামলার বাদী বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএর ওই ছাত্রী বর্তমানে পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। তিনি তার সন্তানের পিতৃত্বের দাবি করেছেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, বরগুনা জেলার পূর্ব কেওড়া বুনিয়ার গোলাম কবীরের ছেলে তানজিল ইসলাম (২৫) বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএ পড়ুয়া ওই ছাত্রীকে একাধিকবার ধর্ষণ করেন। এ ঘটনায় ওই ছাত্রী বাদী হয়ে চলতি বছরের ১৯ জুন খুলনা সদর থানায় তানজিলসহ তার বাবা-মাকে আসামি করে মামলা করেন।

মামলার এজাহারে তিনি উল্লেখ করেছেন, ২০১৭ সালে তার সঙ্গে ফেসবুকে পরিচয় হয় তানজিলের। বছর খানেক প্রেম করার পর ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে তানজিল বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে খুলনার সাতরাস্তা মোড়ের টাইটান আবাসিক হোটেলে নিয়ে ধর্ষণ করে তাকে। সর্বশেষ চলতি বছরের ২২ এপ্রিল একই হোটেলের চতুর্থ তলার ৪০৯ নম্বর কক্ষে নিয়ে ধর্ষণ করার পর তিনি গর্ভবতী হয়ে পড়েন।

বিষয়টি তানজিলকে জানানো হলে সে বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানায়। পরবর্তীতে তানজিলের বাবা ও মাকে বিষয়টি জানান তিনি। কিন্তু তানজিলের বাবা-মা তার সঙ্গে খারাপ ব্যবহারের পাশাপাশি হুমকিও দেন।

ওই ছাত্রী আরও জানান, তানজিল বিবাহিত এবং কন্যা সন্তানের বাবা। বিষয়টি গোপন করেই তার সঙ্গে প্রেমের অভিনয় এবং বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করেছে। তিনি এখন পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। তার সন্তানের পিতার পরিচয় দরকার। বিষয়টি তানজিলের বাবা-মাকে জানানোর পর তারা খুবই খারাপ ব্যবহার ও হুমকি দিয়েছে। এমনকি টাকার বিনিময়ে বিষয়টি সমাধান করার চেষ্টাও করেছে। তিনি এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচারের পাশাপাশি সন্তানের পিতৃত্বের দাবি জানান।

এ বিষয়ে খুলনা সদর থানার এসআই শাহনেওয়াজ বলেন, ওই ছাত্রী তিনজনকে আসামি করে মামলা করেছেন। মামলার ১নম্বর আসামি সরকারি চাকরি করে। এ ঘটনায় তাকে ক্লোজড করা হয়েছে। আসামির বাবাও সরকারি চাকরি করে। সেখানেও অফিসিয়ালভাবে মামলার বিষয়টি জানানো হয়েছে। তবে এখনও কাউকে আটক করা হয়নি।

নিউজটি শেয়ার করুন...

আপনার মন্তব্য প্রদান করুন...


© All rights reserved © 2018 bdnews71
Design & Developed BY N Host BD