শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮:২১ পূর্বাহ্ন

বকেয়া পরিশোধ করে চাকুরীতে পূর্ণবহালের আল্টিমেটাম: পলাশ

বিডি নিউজ ৭১ ডেস্কঃ  

শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৪টায় ফতুল্লার নন্দলালপুরের নারায়নগঞ্জ সদর উপজেলা দেশিয় শাড়ী ব্লক কারখানা ডাইং এন্ড প্রিন্টিং শ্রমিক ইউনিয়ন রেজি-নং-০০৫ এর আয়োজনে শ্রমিক সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় শ্রমিকলীগের কেন্দ্রিয় নেতা এবং ইউনাইটেড ফেডারেশন অব গার্মেন্টস ওয়ার্কার্স এর কেন্দ্রিয় সভাপতি আলহাজ্ব কাউসার আহমেদ পলাশ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে নারায়নগঞ্জের ৬টি প্রতিষ্ঠানের ১৪৫ জন শ্রমিকের বকেয়া পাওনা এবং চাকরিতে পুর্নবহাল করতে হবে । অন্যথায় শ্রমিকদের অধিকার আদায়ে রবিবার থেকে আন্দোলনের মাধ্যমে শ্রমিকরা ন্যায্য দাবী আদায়ে রাজপথে নেমে আসবে।

শ্রমিক সমাবেশে জাতীয় শ্রমিকলীগ ফতুল্লা আঞ্চলিক শাখার অর্ন্তভুক্ত কুতুবপুর ইউনিয়ন ইউনিটের সভাপতি মো. নজরুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে ও মোখলেছুর রহমান তোতার সঞ্চালনায় আরও বক্তব্য রাখেন, ইউনাইটেড ফেডারেশন অব গার্মেন্টস ওর্য়াকার্সের জেলা কমিটির সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন সেন্টু, মো. শাহজাহান, মো. ফিরোজ মিয়া, গোলাম কিবরিয়া সাত্তার, নুরুল ইসলাম, রফিকুল ইসলাম, ওবায়দুর রহমান উবায়েদ ও ফারুক আকন্দ।

কাউছার আহমেদ পলাশ বলেন, আইএলও-এর কনভেনশন অনুযায়ী এই শ্রমিক সংগঠন সৃষ্টি হয়েছে, বাংলাদেশের শ্রম আইন অনুযায়ী শ্রমিকের অধিকার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। শ্রমিকের অধিকারের কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন, হিরন শেখের গায়ে যারা হাত দিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে ক্রিমিনাল আইনে মামলা দায়ের করা হবে। করোনার সময় যখন লকডাউন চলছিলো তখন কারখানা বন্ধ করে দেওয়া হয়, আবার যখন চালু হয় তখন এই শ্রমিকদের চাকরিতে পূর্নবহাল না করে নতুন লোকদের নিয়োগ দেওয়া হয়। কারন একটাই পুরোনো শ্রমিকরা ১০ বছর ১২ বছর ধরে এখানে কর্মরত তাদের পাওনা বেনিফিট আত্মসাত করা হবে। তাতে কোনো লাভ হবেনা, হয় চাকরিতে পূনর্বহাল করতে হবে না হয় ছাটাইকৃত শ্রমিকদের আইন অনুযায়ী বকেয়া পাওনা বুঝিয়ে দিতে হবে। এর কোনো বিকল্প পথ মালিকদের কাছে খোলা নেই।

তিনি বলেন, জাতীয় পর্যায়ে কাজ করার জন্যই আমাদের রাখা হয়েছে। শ্রমিক অসন্তোষের সমাধানে জাতীয় অর্থাৎ সর্বোচ্চ পর্যায়ে গুরুপূর্ন বৈঠকে আমি একজন নগন্য শ্রমিকনেতা হিসেবে শ্রমিকের প্রতিনিধিত্ব করছি। অথচ এসব ডাইং কারখানার মালিকরা অবৈধ ভাবে শ্রমিক ছাটাই করেও শ্রমিকের দাবী পুরণের বিষয়ে কোন বৈঠক করছেন না, শুধু তাই নয় প্রশাসনের নির্দেশকে মানছেন না। তাদের হুশিয়ার করে বলছি যখন আমি আমার শ্রমিকের পাওনা দাবী আদায় করবো তখন কিন্তু আপনারাও ‘হু আর ইউ’ হয়ে যাবেন। এখনও সময় আছে শ্রমিকের ন্যায্য দাবি মেনে নিন।

নেতৃবৃন্দের মাঝে আরো উপস্থিত ছিলেন পিয়াস আহম্মেদ সোহেল, কবির হোসেন রাজু, আজিজুল হক, সাকিলসহ বেসিক ট্রেড ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ সহ প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন...

আপনার মন্তব্য প্রদান করুন...


© All rights reserved © 2018 bdnews71
Design & Developed BY N Host BD