শুক্রবার, ২৯ মে ২০২০, ০২:৫৪ পূর্বাহ্ন

৭ই মার্চ বঙ্গবন্ধুর ভাষণ মুক্তিকামী মানুষের প্রেরণার উৎস: কাউসার আহমেদ পলাশ

৭ই মার্চ বঙ্গবন্ধুর ভাষণ মুক্তিকামী মানুষের প্রেরণার উৎস: কাউসার আহমেদ পলাশ

বিডি নিউজ ৭১ ডেস্ক:

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দূরদৃষ্টিসম্পন্ন নেতৃত্বের ফলেই পরাধীন বাংলা স্বাধীন হওয়ার গৌরব অর্জন করে। ১৯৭১ সালের ৭ মার্চ রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমান সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) ১৭ মিনিটের এক জাদুকরি ভাষণে বাঙালি জাতিকে স্বাধীনতা অর্জনের নেশায় বিভোর করেছিলেন তিনি। এরপরই বাংলার মানুষ নিজেদের পরাধীনতার গ্লানি দূর করে স্বাধীনভাবে মাথা উচু করে বাচার ধীর প্রত্যয় নিয়ে সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়ে। দীর্ঘ ৯ মাসের লড়াই এর পর অর্জিত হয় স্বাধীনতা এবং বাঙ্গালী জাতি ফিরে পায় তাদের ন্যায্য অধিকার।

৭ মার্চ সেদিন বিশাল জনসমুদ্রে দাঁড়িয়ে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের ডাক দেন। লাখ লাখ মুক্তিকামী মানুষের উপস্থিতিতে এই মহান নেতা বজ্রকণ্ঠে ঘোষণা করেন, ‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম।’ তিনি আরও বলেন, ‘রক্ত যখন দিয়েছি, রক্ত আরও দেব, এ দেশের মানুষকে মুক্ত করে ছাড়ব, ইনশা আল্লাহ।’

 

জাতির পিতার প্রেরণাদায়ী সেই ভাষণ আমাদের কাছে সব সময়ই প্রেরণা যোগায়। ২০১৭ সালে জাতিসংঘের শিক্ষা, বিজ্ঞান ও সংস্কৃতি সংস্থা ইউনেসকো বিশ্ব ইতিহাসের প্রামাণ্য দলিল হিসেবে গ্রহণ করে ভাষণটিকে। সংস্থাটি বিশ্বের ৭৮টি ঐতিহাসিক ও গুরুত্বপূর্ণ দলিল, নথি ও বক্তৃতার মধ্যে বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণও অন্তর্ভুক্ত করে। এটা নিঃসন্দেহে সমস্ত বাঙালির জন্যই গৌরবের বিষয়।

মূলত পাকিস্তান রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ২৩ বছরের আন্দোলন-সংগ্রামের মধ্য দিয়ে বাঙালি জাতিসত্তা, জাতীয়তাবোধ ও জাতিরাষ্ট্র গঠনের যে ভিত রচিত হয়, তারই চূড়ান্ত পর্যায়ে বঙ্গবন্ধু ৭ মার্চ ভাষণ দেন। এতে ছাত্র-কৃষক-শ্রমিকসহ সর্বস্তরের বাঙালি খুঁজে পায় নতুন প্রেরণা। একাত্তরের ৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর এই উদ্দীপ্ত ভাষণটি ছিল মুক্তিযুদ্ধের দিকনির্দেশনা। এই ভাষণের পরই মুক্তিকামী মানুষ ঘরে ঘরে চূড়ান্ত লড়াইয়ের প্রস্তুতি নিতে শুরু করে। এরই ধারাবাহিকতায় ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বিজয় ছিনিয়ে আনে বাঙালি জাতি। এই বিজয়ের মধ্য দিয়ে বিশ্বমানচিত্রে জন্ম নেয় স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ।

বঙ্গবন্ধু সে সময়ে যে প্রেক্ষাপটে ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ দিয়েছিলেন- সে সময় অত্যন্ত কঠিন সময় ছিল বাঙালি জাতির জন্য।বঙ্গবন্ধু কৌশলের আশ্রয় নিয়ে বলেছিলেন- ‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম’। মূলত এই বাক্যটি উচ্চারণ করেই বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতার ঘোষণা দেন। কালজয়ী এই ভাষণ বিশ্বের শোষিত, বঞ্চিত ও মুক্তিকামী মানুষের সব সময় প্রেরণার উৎস হয়ে থাকবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন শ্রমিক নেতা আলহাজ্ব কাউসার আহমেদ পলাশ।

নিউজটি শেয়ার করুন...

আপনার মন্তব্য প্রদান করুন...


© All rights reserved © 2018 bdnews71
Design & Developed BY N Host BD